মাঝে মাঝে কাজ ফেলে সম্পর্কে সময় দিন

344

প্রশ্ন: আমার তিন বছরের এক ছেলে রয়েছে। আমি, আমার ছেলে ও আমার স্বামী একই ঘরে ঘুমোই। আমাদের ঘনিষ্ঠ মুহূর্তে একদিন আমার ছেলে চলে আসে। এরপর অস্বস্তিকর প্রশ্ন করতে শুরু করে। আমি ওর মাথা থেকে ওই কথাগুলো কিছুতেই বের করতে পারছি না। আমার কি করা উচিৎ?

married couple
ডাঃ গর্গ: প্রথমত একটা আলাদা ঘরেই স্বামী-স্ত্রী’র ঘনিষ্ঠ হওয়া উচিৎ। তবে যা হয়েছে তাতে খুব বেশি বিব্রত হওয়ার কিছু নেই। সন্তানকে বুঝতে দিলে হবে না যে আপনি অস্বস্তিতে রয়েছেন। তাতে ওর যৌনতা সম্পর্কে খারাপ ধারনা হবে ও ভাববে এটা কোনও নিষিদ্ধ বিষয়। আর ওর প্রশ্ন এড়িয়ে যাবেন না। তাতে আপনার ছেলের কৌতূহল আরও বেড়ে যাবে। আপনি এখন যেভাবে বিষয়টা সামলাবেন তাতে আপনার ছেলের ভবিষ্যতের উপর প্রভাব পড়বে এটা মাথায় রাখবেন। তাই ওকে এখন থেকেই এই বিষয়টাকে ওর মত করে বুঝিয়ে দিন। এই ধরনের ঘনিষ্ঠতাই যে স্বাভাবিক সেটা ওকে বুঝতে দিন। ওর কাছে লুকনোর চেষ্টা করবেন না। তাতে আরও খারাপ হবে।

২. আমি একটি প্রাইভেট ফার্মে চাকরি করি। আমার স্বামী আইটি সংস্থায় রয়েছে। আমরা দু’জনেই দিনের শেষে ক্লান্ত হয়ে বাড়ি ফিরি। খুব কম কথা বলি। ভালভাবে সময় কাটাতে পারি না। এমনকী আমাদের শারীরিক সম্পর্কেও এর প্রভাব পড়ছে। কিভাবে আমাদের সম্পর্ক আরও মজবুত করব?

ডাঃ গর্গ: বর্তমানে ব্যস্ত জীবনে এটা একটা খুব সাধারণ সমস্যা। সবাই এই সমস্যায় পড়ছেন। কিন্তু, কিছুটা সময় বের করে একে অপরকে দিতেই হবে। সবসময় প্ল্যান করে সেটা করা সম্ভব নয়। বরং প্রতিদিনের মধ্যে থেকেই কিছুটা সময় বের করে নিতে হবে। কিছুক্ষণের জন্য কাজটা পিছনে রেখে সম্পর্কটাকে অধিক গুরুত্ব দিন। দু’জনেই ভালবাসেন এমন কিছু করুন একসঙ্গে। একটা ছোটখাটো ছুটি নিন। আপনার স্বামীকে সারপ্রাইজ করুন। নিজেকে সুন্দর দেখায় এমনভাবে সাজুন। যাতে আপনার সঙ্গী আবার নতুন করে আপনার প্রেমে পড়ে। আর অবশ্যই শারীরিক সম্পর্কের জন্য সময় দিন।

 

উত্তর দিয়েছেন ফর্টিস হাসপাতালের চিকিৎসক, মনোরোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ সঞ্জয় গর্গ

এই বিভাগে আপনাদের সমস্যার সমাধানে হাত বাড়িয়ে দেব আমরা৷ আপনাদের যা কিছু সমস্যা, যে কথা কাউকেই বলতে পারছেন না, সে কথা জানান আমাদের৷ আমরা বিশিষ্ট মনোবিদের থেকে তার উত্তর এনে পৌঁছে দেব আপনাদের কাছে৷ আপনাদের সমস্যা জানিয়ে মেইল করুন, [email protected]

মেইলের সাবজেক্টে নন্দিনী-বন্ধুতা কথাটি অবশ্যই উল্লেখ করবেন৷