ক্ষতিকর এই খাবারগুলো রয়েছে আপনার রান্নাঘরেই!

857

আমাদের প্রায় প্রত্যেকের রান্নাঘর আর ফ্রিজ খোঁজা হলে এই খাবারগুলো পাওয়া যাবেই৷ খুব সহজেই বানিয়ে নেওয়া যায়, অথবা পাওয়া যায় হাতের কাছের দোকানগুলিতেই৷ তাই এই খাবারগুলোতে না বলি না কখনও আমরা৷ আমরা কি জানি, নিজেদের অজান্তেই শরীরের কত বড় ক্ষতি করে ফেলছি?

ইন্সট্যান্ট নুডলস
সব রকমের ইন্সট্যান্ট নুডুলস বেশি পরিমাণে প্রসেসড করা থাকে। এইসব নুডলসে পুষ্টিগুণ একেবারেই থাকে না বললেই চলে। এর সাথে এতে থাকে অনেক বেশী পরিমাণে ফ্যাট, ক্যালোরি এবং সোডিয়াম। একইসাথে তৈরি করার সময় এতে ব্যবহার করা হয় প্রচুর পরিমাণে কৃত্রিম রঙ, প্রিজারভেটিভস, অ্যাডেটিভস ও ফ্লেভার। যেমন: স্বাদ বাড়ানোর জন্য ব্যবহার করা হয় মনোসোডিয়াম গ্লুকামেট (MSG), যা শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকর একটি উপাদান।

কম দামি চকলেট
বাড়ির কাছে প্রায় প্রতিটি দোকানেই পাওয়া যায় বিভিন্ন অনামী কোম্পানীর চকলেট। এতো কম দামে তা পাওয়া যায় বলে সহজেই তা কিনে খান মানুষ৷ কিন্তু একবারও ভেবে দেখি না, এত অল্প দামে কীভাবে চকলেট বিক্রি করা সম্ভব? এই চকলেটগুলিতে প্রকৃত ‘চকলেট’ একেবারেই থাকে না। এগুলো মূলত তৈরি করা হয় প্রচুর পরিমাণে চিনি, প্রোটিনের থেকে নেওয়া কিছু পরিমাণে ফ্যাট থেকে। এছাড়াও, এই সকল চকলেটে থাকে পাম অয়েল, যেটা রিফাইন্ড এবং প্রসেসড একটি তেল। নিয়মিতভাবে এই সব চকলেট খেলে শারীরিক সমস্যা দেখা দেওয়া শুরু হতে পারে৷

নরম পানীয়
যে কোন নরম পানীয় হলো প্রসেসড খাবারের অন্যতম একটি উদাহরণ। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আর্টিফিসিয়াল ফ্লেভার ও চিনি, যা কোনভাবেই নিয়মিত ভাবে পান করা উচিৎ নয়।

মার্জারিন
উদ্ভিজ মাখন কিংবা মাখনের বিকল্প উপাদান হিসেবে ব্যবহৃত হয় মার্জারিন। এই খাদ্য উপাদানকে যদিও দারুণ স্বাস্থ্যকর খাবার হিসেবে অভিহিত করা হয়, তবে এটিও অনেক বেশী প্রসেসড একটি খাবার। জেনে অবাক হবেন, মারজারিন তৈরিতে ব্যবহার করা হয় সবচাইতে নিকৃষ্ট জাতীয় ফ্যাট- ট্র্যান্স ফ্যাট। যা মানুষের শরীরে বাজে কোলেষ্টেরল এর মাত্রা অনেক বেশী বাড়িয়ে দেয়।

সিরিয়াল (কর্নফ্লেক্স)
বাইরের দেশেই মূলত এই খাদ্য উপাদানটি জলখাবার হিসেবে অনেক বেশী ব্যবহৃত এবং প্রচলিত। তবে এখন যে কোনও দোকানেই সহজলভ্য হয়ে উঠেছে সিরিয়াল। সহজলভ্য ও দ্রুত প্রস্তুত করা যায় বলে অনেকেই নিজের ও বাচ্চাদের জলখাবারে সিরিয়াল খাওয়ার চল শুরু করেছেন। প্যাকেটের গায়ে এবং টিভি বিজ্ঞাপনে এই খাদ্য উপাদানকে অনেক বেশী স্বাস্থ্যকর হিসেবে দাবি করা হলেও, আদপে তা নয়৷ যে কোন ক্যান্ডি বারের সমপরিমাণ চিনি রয়েছে সিরিয়ালে।

ফ্যাট-ফ্রি খাদ্য উপাদান
ফ্যাট-ফ্রি খাদ্য উপাদানে প্রাকৃতিক ফ্যাট বাদ দিয়ে নকল এবং স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর পদার্থ ব্যবহার করা হয়। তার চাইতেও বড় কথা হল, বেশীরভাগ ফ্যাট-ফ্রি খাদ্য উপাদানই অনেক বেশী চিনিযুক্ত হয়, যার পরিমাণ স্বাভাবিক ফ্যাটযুক্ত খাদ্যের চাইতেও বেশী।

আর্টিফিসিয়াল সুইটনার
শুধুমাত্র নামটাই বলে দিচ্ছে এর ধরণ! এই সকল ধরণের সুইটনার আর্টিফিসিয়াল, প্রসেসড হয়৷ যা রক্তে চিনির মাত্রায় বিপর্যয় ঘটিয়ে থাকে। যার ফলে উলটে আরও চিনির প্রতি আসক্তি তৈরি হয়।