রেশমি চুরি, হালফিলের স্টাইলিশ ব্যাঙ্গেলস

4388

‘কিনে দে রেসমি চুড়ি নইলে যাব বাপের বাড়ি’৷ এই গানটি থেকেই স্পষ্ট মেয়েদের চুড়ির প্রতি দুর্বলতা কতটা৷ মেয়ে আর চুরি এই দুটো যেন একই মুদ্রার দুটো পিঠ৷ মেয়েরা সব ধরনের অনুষ্ঠানেই চুড়ি পরা পছন্দ করে এবং পরেও৷ আদিম যুগ থেকেই মেয়েদের চুড়ির প্রতি টান বিশেষভাবে লক্ষ্যনীয়৷

একটা সময় ছিল যখন মেয়েরা শুধু কাঁচের চুড়ি পরত কিন্তু এখন নানারকমের ট্রেন্ডি চুড়ি বাজারে এসেছে৷ মেটাল, সুতো, চামড়া, ব্যাকেলাইট, রবার, কাঠ, মাটি, বিডস, পুঁতি, সিটি গোল্ডসহ নানা ধরনের চুড়ির ব্যবহার বাড়ছে। আধুনিকতার ছোঁয়ায় মেয়েরা এখন নবরুপে সেজে ওঠছে৷

এখন আবার বিভিন্নরকমের লাল নীল সবুজ কাঠের মোটা মোটা চুড়ির সঙ্গে মেটালের চুড়িও একসঙ্গে করে পরেন তাতে সেটা অনেকবেশি ট্রেন্ডি লাগে৷ অনেকে আবার ঠিক চুড়ি পরা পছন্দ করে না তারা বিভিন্নরকমের ব্রেসলেটে নিজেদের সাজিয়ে তোলেন৷ ব্রেসলেট পশ্চিমী ও ভারতীয় সব ধরনের পোশাকের সঙ্গেই সমানভাবে যায়৷ তাই অনেকে খুবই পছন্দ করে থাকেন৷ এছাড়া বিভিন্ন রঙের সরু সরু প্লাস্টিকের চুড়িও অনেকে পরছেন এটাও এখন বর্তমান ফ্যাশনে ইন৷ আবার এক রঙা অক্সাডাইসের চুড়িও বেশ লাগে শাড়ি সঙ্গে৷